Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

সিটিজেন চার্টার

সাধারণ জনগণের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ততা না থাকায় অদ্যাবধি তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী’র কার্যালয়ের সিটিজেন চার্টার প্রণীত হয়নি। তবে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রানাধীন এবং অত্র দপ্তরের আওতাধীন ০৮টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-তে(পবিস-তে) সিটিজেন চার্টার রয়েছে।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি গ্রাহক সেবা নির্দেশিকা

(সিটিজেন চার্টার)

১। গ্রাহক সেবা কেন্দ্রঃ- বাংলাদেশের ৭০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ দপ্তরের গ্রাহক সেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে গ্রাহক সেবা প্রদান করা হয়।

২। নতুন সংযোগ গ্রহনঃ-• ‘‘গ্রাহক সেবা কেন্দ্র’’ থেকে নতুন সংযোগের আবেদন পত্র পাওয়া যাবে।• আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পূরণ করে নির্ধারিত আবেদন ফি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি (পবিস) এর ক্যাশ শাখায় জমা প্রদান করতে হবে।

৩। বিল সংক্রান্তত অভিযোগঃ-• বিল সংμান্ত যে কোন অভিযোগ  ‘‘গ্রাহক সেবা কেন্দ্র’’ এ যোগাযোগ করে সমাধান করা যায়।

৪। বিল পরিশোধঃ- ‘‘গ্রাহক সেবা কেন্দ্র’’ সংলগ্ন পবিস এর ক্যাশ শাখায় /নির্ধারিত ব্যাংক এ গ্রাহক বিল পরিশোধ করতে পারবেন।

৫। বিদ্যুৎ বিভ্রাটের অভিযোগঃ- পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এর সকল ‘‘অভিযোগ কেন্দ্র’’ অথবা ‘‘গ্রাহক সেবা কেন্দ্র’’ এ আপনার বিদ্যুৎ বিভ্রাটের অভিযোগ জানানো হলে আপনাকে অভিযোগ নম্বর ও নিস্পত্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে।

৬। নতুন সংযোগের জন্য দলিলাদিঃ-

• সংযোগ গ্রহণকারী পার্সপোট সাইজের ০২ (দুই) কপি সত্যায়িত রঙ্গিন ছবিসহ জমির দলিল ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সংশ্লিষ্ট দলিলাদি প্রয়োজন।

৭। নতুন সংযোগের জন্য আবেদন ফিঃ- ১. বাড়ী / বাণিজ্যিক / দলগত / দাতব্য প্রতিষ্ঠানের জন্য-• ১ থেকে ৯ জন পর্যন্ত গ্রাহকের ক্ষেত্রেঃ ২৫.০০ টাকা (জনপ্রতি)।• ১০ হতে ২০ জন পর্যন্ত গ্রুপ সম্বলিতঃ ২৫.০০ টাকা(নির্ধারিত)।২. সেচ কার্য্যে বিদ্যুৎ সংযোগের ক্ষেত্রেঃ ২৫০.০০ টাকা।৩. যে কোন ধরনের অস্থায়ী সংযোগের জন্য ২৫০.০০ টাকা।৪. শিল্প প্রতিষ্ঠানের সংযোগের জন্য ১০০০.০০ টাকা।

৮। নতুন সংযোগের জন্য জামানতের পরিমাণঃ-• আবাসিক / বাণিজ্যিক / দাতব্য প্রতিষ্ঠানের জন্য এক কিলোওয়াট লোডের জন্য = ৩০০.০০ টাকা অথবা পরবর্তী এক কিলোওয়াট বা আংশিকের জন্য = ১০০.০০টাকা।• সেচ কার্য্যে অগভীর নলকুপ / এলএলপি প্রতি হর্সপাওয়ারের জন্য = ৬২৫.০০ টাকা (সেচ অগ্রীম বিদ্যুৎ বিল/ বিলের সাথে সমন্বয়যোগ্য)।• গভীর নলকুপ প্রতি হর্স পাওয়ার ১০০০.০০ টাকা (সেচঅগ্রীম বিদ্যুৎ বিল যা বিলের সাথে সমন্বয়যোগ্য)।

৯। অস্থায়ী বিদ্যুৎ সংযোগঃ- • মেলা, আনন্দ মেলা, ধর্মসভা / ধর্মীয় অনুষ্ঠান, নির্মাণাধীন সাইট যেমন-রাস্তা, ব্রীজ ইত্যাদিতে অস্থায়ী সংযোগ দেওয়া যাবে কিন্তু নির্মাণাধীন বাড়ি, শিল্প প্রতিষ্ঠান এবংকমপ্লেক্সে অস্থায়ী সংযোগ দেওয়া যাবে না। ইহা সম্পূর্ণরূপে অস্থায়ী সংযোগ হিসাবে বিবেচিত হবে যাহা কখনই স্থায়ী সংযোগ হিসাবে রূপান্তরিত করা যাবে না।এই জাতীয় সংযোগের ক্ষেত্রে নির্ধারিত শর্তাবলী ও নিয়মাবলী প্রযোজ্য হবে।

১০। লোড পরিবর্তনঃ-• নতুন পরিবর্তন ফি প্রদান করতে হবে।• চুক্তি পরিবর্তন ফি প্রদান করতে হবে।• লোড বৃদ্ধির জন্য প্রযোজ্য অনুযায়ী কিলোওয়াট প্রতি বিদ্যমান হারে জামানত প্রদান করতে হবে।• অতিরিক্ত লোডের জন্য সার্ভিস তার / মিটার বদলানোর প্রয়োজন হলে উক্ত ব্যয় গ্রাহককে বহন করতে হবে।• প্রাক্কলন ও জামানতের অর্থ জমা দানের ৭ (সাত) দিনের মধ্যে লোড বৃদ্ধি কার্যকর করা হবে। যদি লোড বৃদ্ধি করা সম্ভবপর না হয় তবে তার কারণ জানিয়ে গ্রাহককে একটি পত্র দেয়া হবে।

১১। গ্রাহকের নাম পরিবর্তন পদ্ধতিঃ-গ্রাহক μক্রয়সূত্রে/ওয়ারিশসূত্রে/লিজসূত্রে জায়গা বা প্রতিষ্ঠানের মালিক হলে সকল দলিলের সত্যায়িত ফটোকপি ও সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের কপিসহ নির্ধারিত ফি ব্যাংকে জমা করে আবেদন করতে হবে। বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, মিটার, মিটারিং ইউনিট ইত্যাদি পুনরায় সচল করা গেলে মেরামত খরচ অথবা সম্পূর্ণ ধ্বংসপ্রাপ্ত বা পুনরায় সচল করা যাবে না এরূপ সরঞ্জামের জন্য পুনঃস্থাপনের ব্যয়সহ প্রকৃত মূল্য আদায় করা হবে।

১২। বিদ্যুতের মূল্যহারঃ- শ্রেণীভিত্তিক বিদ্যমান বিদ্যুতের মূল্যহার সরকার কর্তৃক  নির্ধারিত মূল্যহার। যা সময়ে সময়ে সরকার কর্তৃক পুনঃনির্ধারনযোগ্য/পরিবর্তনযোগ্য।